মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

উপজেলার পটভূমি

উপজেলারপটভূমি

খাদ্যসশ্য উৎপাদনে দিনাজপুর জেলার  সমৃদ্ধ উপজেলাগুলোর মধ্যে চিরিরবন্দর একটি অন্যতম উপজেলা। ১৯১৪ সালে চিরিরবন্দর থানা গঠিত হয়। বৃটিশ আমলে এ উপজেলাধীন চিরির নদীতে বড় বড় নৌকায় করে সওদাগররা তাদের ব্যবসার মালামাল আনানেয়া করত এবং ব্যবসা করত। ব্যবসার কারনে এখানে একটি বন্দর গড়ে উঠে। নদীর নামানুসারে এ বন্দরটির নাম হয় চিরিরবন্দর। কালক্রমে এ বন্দরের নামানুসারে এ মৌজাটি চিরিরবন্দর নামে পরিচিতি লাভ করে মর্মে জানা যায়।বাংলাদেশের উত্তর জনপদের দিনাজপুর জেলার আওতাধীন চিরিরবন্দর উপজেলা।ঐউপজেলার ইতিহাস আছে, ঐতিহ্য আছে আছে নিজস্ব স্বকিয়তা ও বৈশিষ্ট্য।প্রশাসনিক পূণঃবিন্যাস কার্যক্রমের আওতায় পুলিশি থানা ব্যবস্থাকে মান উন্নীত থানা হিসেবে প্রশাসনের কার্যক্রম শুরু হয় ০৭ নভেম্বর ১৯৮২-তে। এই দিন ৪৫টি থানা উপজেলা হিসেবে কার্যক্রম শুরু করে। Lord warren Hastings 1774 এর এপ্রিল-এ থানা নামক যে প্রতিষ্ঠান চালু করেন ২০৮ বছর পর তা নুতন নামে অর্থাৎ উপজেলা নামে যাত্রা শুরু করে। ১০টি পর্যায়ে মান উন্নয়ন সম্পন্ন হয়, চিরিরবন্দর ৫ম পর্যায়ে মান উন্নীত উপজেলা হিসেবে ১৯৮৩ সালে ১৪ইং সেপ্টেম্বর কার্যক্রম শুরু করে।

 

 

একনজরেউপজেলা

  • আয়তন: ৩১২.৮৫ বর্গ কিঃ মিঃ।
  • জনসংখ্যা: ২,৬৫,৩৬০(২০০১সালেরআদমশুমারীঅনুযায়ী),
  • ক) পুরুষঃ ১,৩৫,৮০০ জন,
  • খ) মহিলাঃ ১,২৯,৫৬০ জন।
  • ঘনত্ব: প্রতিকিঃমিঃ৮৫৯জন।
  • নির্বাচনীএলাকা: চিরিরবন্দর-খানসামা, দিনাজপুর-৪
  • থানা/ইউনিয়ন: থানা-১টি, ইউনিয়ন- ১২টি।
  • মৌজা: ১৪৫টি।
  • সরকারীহাসপাতাল: ১টি।
  • স্বাস্থ্যকেন্দ্র/ক্লিনিক:
  • ক) উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রঃ ০২টি,
  • খ) কমিউনিটি ক্লিনিকঃ ৩৩ টি,
  • গ) এফডব্লিউসিঃ ১২ টি।
  • পোষ্টঅফিস: ক) প্রধানডাকঘরঃ১টি, খ) সাবডাকঘরঃ১৭টি।
  • নদ-নদী: উল্লেখযোগ্যনদ-নদীকাকড়া, আত্রাইওইছামতিনদী।
  • হাট-বাজার: ২৮টি।
  • ব্যাংক:
  • ক) সোনালী ব্যাংকঃ ২টি,
  • খ) কৃষিব্যাংকঃ৩টি,
  • গ) অগ্রনী ব্যাংকঃ ০২টি,
  • ঘ) জনতা ব্যাংকঃ ০১টি,
  • ঙ) রুপালী ব্যাংকঃ ০১ টি

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)